December 6, 2015

সুন্দরী মেয়েদের মন জয় করার কৌশল

আপনি হয়ত যাকে পছন্দ করেন তার পছন্দের তালিকাতেই আপনি নেই। কাঙ্খিত মেয়েটির কারো সাথে সম্পর্ক নেই আপনি জানেন, আপনিও তার তুলনায় অযোগ্য না। তারপরেও কেন আপনি তার মনের মধ্যে ঢুকতে পারছেন না। আপনি কৌশলগত কারনেই হয়ত তার মনে নিজের আসনটা করে নিতে পারছেননা। সঠিক কিছু মনস্তাত্তিক কৌশল প্রয়োগ করতে পারলেই আপনার বহু কাঙ্খিত সুন্দরীকে নিজের করে পাবেন। শুধু নিচের দেয়া পদক্ষেপ গুলো অনুসরণ করুন আপনার সাফল্য আসবেই। আজ তেমন কার্যকরী ও সহজ পদক্ষেপ আপনাদের জানিয়েছেন সফল প্রেমিক মেহেদী ফারহান খান সেতু।

সুন্দরীর স্বভাব:
যারা সুন্দরী মেয়ে তারা একটু স্বভাবতই সবার সাথে একটু ভাব নিবে কারন তাকে অনেকেই চায় এবং তাদের প্রায় সবাই সুন্দরীদের সাথে ফ্লার্ট করতে চেষ্টা করে যেটার সাথে মেয়েটা একদমই অভ্যস্থ হয়ে উঠেছে বিধায় তার কাছে এগুলো একদমই বিরক্তও লাগতে পারে তাই আপনার বেছ নিতে হবে অন্য পথ এবং অনন্য কৌশল যেটা আপনাকে তার কাছে আলাদা পুরুষ বলে প্রতিয়মান করবে । নিজেকে ইউনিক হিসেবে তুলে ধরতে হবে। নিম্নে আপনার করনীয় তুলে ধরা হল।

রুপের প্রশংসা বাদ দিন:
একটু লক্ষ্য করুন প্রায় সবাই সুন্দরীদের সাথে কথা বলার সময় বলে থাকেন “আপনি অনেক সুন্দরী”, আপনাকে অমুক নায়িকার মতো লাগে, আপনি এত সুন্দর কেন” ইত্যাদি ইত্যাদি। মেয়েরা এসব কথা শুনতে শুনতে আর তাদের কাছে ভাল লাগেনা, লাগে বিরক্তিকর। তবে মেয়েটা যদি এসব কথা শোনার মতো পরিবেশ না পায় তাহলে এসব কথা কাজে দেবে আইকা আঠার মতো। সাধারনত সুন্দরী মেয়েদের বেলায় এমনটা হয়না। এরা কোথাও না কোথাও এসব পরিবেশ অবশ্যই পেয়েছে। তাই প্রথম কথা হলো প্রথমেই তার প্রশংসা করবেননা। এতে তার মনে হবে যে সবাই এটা করে কিন্তু আপনি করেননা । আপনি ওদের থেকে আলাদা।

সুন্দরী মেয়েদের মন জয়
সুন্দরী মেয়েদের মন জয়

অতি আগ্রহ প্রকাশ করবেন না:
আগ্রহ তার প্রতি আপনার অবশ্যই আছে তবে সেটা আপনি প্রকাশ করবেননা । করবেন পরিমিত এবং স্মার্টলি। যাতে করে মনে হয় আপনি অন্যদের থেকে আলাদা কিছু। কোন কিছু এলোমেলো ভাবে প্রকাশ করবেন না এবং আগ বাড়িয়ে কিছু বলতে যাবেন না। পরিবেশ করে তুলুর এবং তার মুখ থেকেই বের করার চেষ্টা করুন।
আকর্ষণীয় উপহার দিন:
উপহার কে না ভালবাসে তাই বিশেষ কোন দিন এলেই তাকে উপহার দিন । তাকে আপনার শেষ্ঠত্ব বুঝে নেয়ার সুযোগ করে দিন। সুন্দর ও দামি উপহার দিন।

তার মন সুন্দর বলুন:
কোন এক সুন্দর কথা বললেই তাকে বলে দিন যে তার মনটা অনেক সুন্দর। এটা তাকে বুঝতে দিন যে আপনি তার সুন্দর মনের জন্যই তাকে পছন্দ করেন।
স্মার্ট থাকুন:
আপনি সব সময় স্মার্ট থাকুন এবং সুন্দর করে গুছিয়ে কথা বলুন। তাকে আপনার ভাল লাগার কথা যখন বলবেন তখন স্মার্টলি তাকে বলে দিন যে তাকে আপনি ভালবাসেন এবং তাকে সুখী করতে আপনি কি কি করতে পদক্ষেপ নিচ্ছেন।

সাহসী পুরুষ হন:
কাঙ্খিত মেয়েটির সামনে সুযোগ এলে আপনার সাহস প্রদর্শন করুন মন্ত্রের মত কাজে দেবে। মনে রাখুন মেয়েরা নিজেকে কোন সাহসী পুরুষের হাতে তুলে দিতে সদা প্রস্তুত। সাহসহীনকে করে ঘ্রিনা।

আপনি সম্পদশালী তা প্রদর্শন করুন:
মেয়ে যেমনই হোকনা কেন সে তার জীবন সঙ্গীকে অবশ্যই আর্থিক সচ্ছল দেখতে পছন্দ করে। আর আপনি যখন তার সাথে কোথাও ঘুরতে যান তখন আপনি আগেই গাড়ি থেকে নেমে তাকে নামায় সাহায্য করুন। ব্যাস আপনার কাজ শেষ এবার লক্ষ্য করুন আপনাকে কেমন করে কত দ্রুত আপন করে নিচ্ছে।

আমাদের মধ্যে অনেকেই তার ভালোবাসার মানুষটাকে মনের কথা বলতে পারে না। মেয়েদের মনও যোগানো তো স্বপ্ন। ভাবছেন কী করে সম্ভব? অবশ্যই সম্ভব! মানুষ পারে না এমন কোনো কাজই পৃথিবীতে নেই। শুধু একটু নিয়ম করে এগিয়ে গেলেই সম্ভব।

আপনার পছন্দের মেয়েটি যতই ব্যক্তিত্ব সম্পন্ন হোক না কেন, যতই চাপা স্বভাবের হোক না কেন, চেষ্টা করলে সে আপনার ডাকে সাড়া দেবেই। সবার আগে তার ব্যক্তিগত জীবন সম্পর্কে সচেতন হয়ে নিন। কোনো ধরনের জটিলতা বা অন্য সম্পর্ক আছে কিনা জেনে নিন। যদি তা না থাকে তাহলে নিয়ম মেনে এগিয়ে যান, সাত দিনেই আপনার পছন্দের মেয়েটিকে কাছে পেয়ে যাবেন!

১ম দিন: চোখে চোখে কথা বলুন
প্রথম দিনটি অনেক বেশি গুরুত্বপূর্ণ। কেননা এই দিনে আপনার অস্তিত্ব সম্পর্কে জানাতে হবে। আপনি একজন যিনি তাকে অন্যভাবে লক্ষ্য করছেন এটা তাকে বোঝাতে হবে। পৃথিবীতে চোখের ভাষার উপরে কোনো ভাষাই হয়না। বলা হয়ে থাকে শুধু চোখের ভাষাতেই সমস্ত রাজ্যটাকেই বুঝিয়ে দেয়া সম্ভব। এ কারণে চোখের ভাষাতেই তার সঙ্গে কথা বলুন। তার চোখের আপনাকে আকর্ষণীয় করে তুলুন। দেখবেন পরবর্তী ধাপগুলো অনেকটাই সহজ হয়েছে।

২য় দিন: পরিচিত হোন
দ্বিতীয় দিন যে কাজটি করবেন তা হল তার সাথে একটু অন্তরঙ্গভাবে পরিচিত হবেন। এবার তার সঙ্গে চোখের ভাষায় নয় বরং আপন ভঙ্গিতে কথা বলুন। পূর্ব পরিচয় তো আছেই, এবার পালা আলাপ জমানোর।

৩য় দিন: তার আকর্ষণ ধরে রাখুন
তৃতীয় দিন তার সঙ্গে দেখা হলে বা কথা হলে এমন কোনো কিছু করে বসবেন না যেন আপনার প্রতি তার তৈরি হওয়া আকর্ষণটা হারিয়ে যায়। পারলে সেই আকর্ষণটাকে আরও অনেকটুকু বাড়িয়ে তুলুন। সব ভাবেই আপনার চোখ দুটো অনেক বেশি গুরুত্বপূর্ণ। চোখই আপনার মনের কথাগুলো বলে দিতে পারে। চোখই আপনার প্রতি তার আকর্ষণটিকে আরও অনেক বেশি বাড়িয়ে দিতে পারে।

৪র্থ দিন: আরেকটু সহজ হন
চতুর্থ দিনে তার সঙ্গে একটু সহজভাবে কথা বলুন। অর্থাৎ এতদিন নিশ্চয়ই একটা বাড়তি ভদ্রতা ধারণ করে কথা বলেছেন। সেই ছদ্মবেশটি আজ উন্মোচন করে ফেলুন। সহজভাবে তার সঙ্গে কথা বলুন, তাঁকে বুঝতে দিন আপনি কেমন। আপনি আপনার বন্ধুদের সঙ্গে ঠিক যেভাবে ফ্রি হয়ে কথা বলেন তার সাথেও সেভাবে কথা বলুন। নিজের ভালো মন্দ কথার ফাঁকে জানিয়ে দিন। দেখবেন আপনার এই মুক্ত মনের কথায় সে আরও অনেক বেশি মুগ্ধ হয়ে পড়বে।

৫ম দিন: আনুষ্ঠানিকভাবে আমন্ত্রণ জানান
পঞ্চম দিনটি আপনার জন্য অনেক বেশি গুরুত্বপূর্ণ। এই দিনে আপনি তাকে আনুষ্ঠানিকভাবে কোথাও যেতে বা খেতে আমন্ত্রণ জানান। সেখানে দুজনে অনেক কথা বলুন। মজার কোনো কথা বলুন যা তিনি শুনে বেশ মজা পাবেন। তার পছন্দ অপছন্দের গুরুত্ব দিন, নিজের ভবিষ্যৎ জীবনের কথা বলুন। তাহলে দেখবেন তিনি আপনার প্রতি বেশ খানিকটা দুর্বল হয়ে পড়েছেন। ফলে আপনার কাজ অনেক দূর এগিয়ে যাবে।

৬ষ্ঠ দিন: তাকে বলতে দিন
ষষ্ঠ দিনে আপনি একেবারেই কথা বলবেন না। এবারে শুধু তাকে বলতে দেবেন। তিনি কী বলেন আপনি তা মনোযোগ দিয়ে শুনুন। দেখবেন তার সব কথাই হবে সব আপনি কেন্দ্রিক। আপনাকে সে অনেক বেশি মূল্যায়ন করে সব কথা বলছে। সূক্ষ্ম দৃষ্টিতে খেয়াল করে দেখবেন আপনার প্রতি তিনি হালকা-পাতলা দুর্বলও হয়ে গেছেন।

৭ম দিন: প্রপোজ করুন
এই দিন আপনার বিশেষ একটি দিন। আপনি এই দিনে কোনো প্রস্তুতি ছাড়াই প্রপোজ করবেন এবং তা খুব সাধারণভাবেই করবেন। আবার ভাববেন না যে আপনি আগে বা এত জলদি প্রপোজ করবেন কেন? বিষয়টিকে এভাবে দেখলে আপনি কখনই জয়ী হতে পারবেন না। বিষয়টি আপনার মনের দিক থেকে দেখবেন। একজনকে আপনার ভালো লেগেছে আপনি তাকে বলছেন। এতে ছোট হওয়ার কিছু নেই। বরং আপনার পছন্দের মানুষটি খুশি হবে। এভাবে সপ্তম দিনে এসে প্রপোজ করে আপনার পছন্দের মানুষটিকে জয় করে নিন। অন্য কথাও সম্পর্ক না থাকলে তিনি আপনাকে ফেরাতে পারবেন না। - See more at: http://www.sharenews24.com/index.php?page=details&nc=53&news_id=42393#sthash.vMQEeWzP.dpuf
আমাদের মধ্যে অনেকেই তার ভালোবাসার মানুষটাকে মনের কথা বলতে পারে না। মেয়েদের মনও যোগানো তো স্বপ্ন। ভাবছেন কী করে সম্ভব? অবশ্যই সম্ভব! মানুষ পারে না এমন কোনো কাজই পৃথিবীতে নেই। শুধু একটু নিয়ম করে এগিয়ে গেলেই সম্ভব।

আপনার পছন্দের মেয়েটি যতই ব্যক্তিত্ব সম্পন্ন হোক না কেন, যতই চাপা স্বভাবের হোক না কেন, চেষ্টা করলে সে আপনার ডাকে সাড়া দেবেই। সবার আগে তার ব্যক্তিগত জীবন সম্পর্কে সচেতন হয়ে নিন। কোনো ধরনের জটিলতা বা অন্য সম্পর্ক আছে কিনা জেনে নিন। যদি তা না থাকে তাহলে নিয়ম মেনে এগিয়ে যান, সাত দিনেই আপনার পছন্দের মেয়েটিকে কাছে পেয়ে যাবেন!

১ম দিন: চোখে চোখে কথা বলুন
প্রথম দিনটি অনেক বেশি গুরুত্বপূর্ণ। কেননা এই দিনে আপনার অস্তিত্ব সম্পর্কে জানাতে হবে। আপনি একজন যিনি তাকে অন্যভাবে লক্ষ্য করছেন এটা তাকে বোঝাতে হবে। পৃথিবীতে চোখের ভাষার উপরে কোনো ভাষাই হয়না। বলা হয়ে থাকে শুধু চোখের ভাষাতেই সমস্ত রাজ্যটাকেই বুঝিয়ে দেয়া সম্ভব। এ কারণে চোখের ভাষাতেই তার সঙ্গে কথা বলুন। তার চোখের আপনাকে আকর্ষণীয় করে তুলুন। দেখবেন পরবর্তী ধাপগুলো অনেকটাই সহজ হয়েছে।

২য় দিন: পরিচিত হোন
দ্বিতীয় দিন যে কাজটি করবেন তা হল তার সাথে একটু অন্তরঙ্গভাবে পরিচিত হবেন। এবার তার সঙ্গে চোখের ভাষায় নয় বরং আপন ভঙ্গিতে কথা বলুন। পূর্ব পরিচয় তো আছেই, এবার পালা আলাপ জমানোর।

৩য় দিন: তার আকর্ষণ ধরে রাখুন
তৃতীয় দিন তার সঙ্গে দেখা হলে বা কথা হলে এমন কোনো কিছু করে বসবেন না যেন আপনার প্রতি তার তৈরি হওয়া আকর্ষণটা হারিয়ে যায়। পারলে সেই আকর্ষণটাকে আরও অনেকটুকু বাড়িয়ে তুলুন। সব ভাবেই আপনার চোখ দুটো অনেক বেশি গুরুত্বপূর্ণ। চোখই আপনার মনের কথাগুলো বলে দিতে পারে। চোখই আপনার প্রতি তার আকর্ষণটিকে আরও অনেক বেশি বাড়িয়ে দিতে পারে।

৪র্থ দিন: আরেকটু সহজ হন
চতুর্থ দিনে তার সঙ্গে একটু সহজভাবে কথা বলুন। অর্থাৎ এতদিন নিশ্চয়ই একটা বাড়তি ভদ্রতা ধারণ করে কথা বলেছেন। সেই ছদ্মবেশটি আজ উন্মোচন করে ফেলুন। সহজভাবে তার সঙ্গে কথা বলুন, তাঁকে বুঝতে দিন আপনি কেমন। আপনি আপনার বন্ধুদের সঙ্গে ঠিক যেভাবে ফ্রি হয়ে কথা বলেন তার সাথেও সেভাবে কথা বলুন। নিজের ভালো মন্দ কথার ফাঁকে জানিয়ে দিন। দেখবেন আপনার এই মুক্ত মনের কথায় সে আরও অনেক বেশি মুগ্ধ হয়ে পড়বে।

৫ম দিন: আনুষ্ঠানিকভাবে আমন্ত্রণ জানান
পঞ্চম দিনটি আপনার জন্য অনেক বেশি গুরুত্বপূর্ণ। এই দিনে আপনি তাকে আনুষ্ঠানিকভাবে কোথাও যেতে বা খেতে আমন্ত্রণ জানান। সেখানে দুজনে অনেক কথা বলুন। মজার কোনো কথা বলুন যা তিনি শুনে বেশ মজা পাবেন। তার পছন্দ অপছন্দের গুরুত্ব দিন, নিজের ভবিষ্যৎ জীবনের কথা বলুন। তাহলে দেখবেন তিনি আপনার প্রতি বেশ খানিকটা দুর্বল হয়ে পড়েছেন। ফলে আপনার কাজ অনেক দূর এগিয়ে যাবে।

৬ষ্ঠ দিন: তাকে বলতে দিন
ষষ্ঠ দিনে আপনি একেবারেই কথা বলবেন না। এবারে শুধু তাকে বলতে দেবেন। তিনি কী বলেন আপনি তা মনোযোগ দিয়ে শুনুন। দেখবেন তার সব কথাই হবে সব আপনি কেন্দ্রিক। আপনাকে সে অনেক বেশি মূল্যায়ন করে সব কথা বলছে। সূক্ষ্ম দৃষ্টিতে খেয়াল করে দেখবেন আপনার প্রতি তিনি হালকা-পাতলা দুর্বলও হয়ে গেছেন।

৭ম দিন: প্রপোজ করুন
এই দিন আপনার বিশেষ একটি দিন। আপনি এই দিনে কোনো প্রস্তুতি ছাড়াই প্রপোজ করবেন এবং তা খুব সাধারণভাবেই করবেন। আবার ভাববেন না যে আপনি আগে বা এত জলদি প্রপোজ করবেন কেন? বিষয়টিকে এভাবে দেখলে আপনি কখনই জয়ী হতে পারবেন না। বিষয়টি আপনার মনের দিক থেকে দেখবেন। একজনকে আপনার ভালো লেগেছে আপনি তাকে বলছেন। এতে ছোট হওয়ার কিছু নেই। বরং আপনার পছন্দের মানুষটি খুশি হবে। এভাবে সপ্তম দিনে এসে প্রপোজ করে আপনার পছন্দের মানুষটিকে জয় করে নিন। অন্য কথাও সম্পর্ক না থাকলে তিনি আপনাকে ফেরাতে পারবেন না। - See more at: http://www.sharenews24.com/index.php?page=details&nc=53&news_id=42393#sthash.vMQEeWzP.dpuf
Post a Comment